Komoldaho water fall Travel | BD Policy Komoldaho water fall Travel - BD Policy

Komoldaho water fall Travel

⭕🔥✴✔ ছোট-বড় মিলিয়ে কমপক্ষে ১০টি ঝর্নার ট্রেইল কমলদহে ঘুরে আসুন মাত্র ৯৯৫ টাকায় !!! ✔✴💥🔴
.
.
বহু ঝর্না একসাথে একদিনেই যদি দেখতে চান, তবে কমলদহ ট্রেইলে অবশ্যই যান!
.
.
যেভাবে যাবেনঃ ⤵
মিরসরাই-সীতাকুণ্ডের মধ্যিখানে বড়দারোগারহাট নামক স্টেশনের সংলগ্ন ইটভাটার পাশের রাস্তা দিয়ে ১৫ মিনিট হাটলেই পৌছে যাবেন কমলদহ ঝর্ণায় ।
.
খরচঃ⤵
✔ রাত ১১:৩০ এ কমলাপুর থেকে তূর্ণা নিশিতায় যাত্রা শুরু, ফেনীতে পৌছাবেন ভোর ৫:১১ এ (শোভন চেয়ার, ভাড়া ২৪৫/-)
.
[ট্রেনে আসতে না চাইলে কমলাপুর/টিটি পাড়া থেকে ফেনীর রাতের লাস্ট বাস ১১:৪০ এর স্টার লাইনে উঠবেন ২৭০ টাকা ভাড়া,
অথবা চট্রগ্রামগামী যেকোন বাসে উঠে কন্ট্রাকদারকে ভাল করে বলে দিবেন বড়দারোগারহাট হাট যেন নামিয়ে দে, সেক্ষেত্রে রাত ১:০০/১:৩০ টার বাসে উঠলে পারফেক্ট হবে।
ভাড়া ৪০০-৫০০/-]
.
✔ রেললাইন স্টেশনের পাশে/মহিপালে সকালের নাস্তা। (৩পরটা, ভাজি, চা ৩০/-)
✔ স্টেশন থেকে মহিপাল অটো/সিএনজি (১০/-)
✔ দুপুরে খাওয়ার জন্য শুকনো খাবার নিয়ে যাবেন (খেজুর, কলা, পানি,বান ইত্যাদি ৮০-১০০/-)
✔ মহিপাল থেকে বড়দারোগারহাট লোকাল বাস (৭০/-)
✔ গাইড খরচ ৩০০ এর উপর নয় (প্রতিজন ৫০+/-)
✔ ট্রেকিং শেষে ফিরার পথে,
✔ বড়দারোগারহাট থেকে মহিপাল, ফেনী (৭০/-)
✔ ফেনীতে খাবার (১৫০/-)
✔ স্টারলাইনের বাসে করে ফেনী টু ঢাকা (২৭০/-)
সর্বমোট ⭕⭕ ৯৯৫/- ⭕⭕
.
.
সতর্কতা এবং বিবিধঃ
🔶 ট্রেইলটি তুলনামূলক সহজ। তাই গাইড ছাড়াই ট্রেকিং করতে পারবেন। যদি গাইড নেন তাহলে অবশ্যই বলে নিবেন যেন সব ঝর্ণা দেখায়।
আমি নিজে দেখেছি, গাইড তার টিমকে কিভাবে ইনহিবিট করে “সামনে আর কিছু নেই” বলে ফিরিয়ে নেয়।
অথছ ওই সামনেই ঝর্ণায় ভাড়াই!!
{গাইড ছাড়াই যদি যেতে চান তাহলে এই পোস্টের শেষের প্যারা ফলো করুন। }
🔷 ট্রেইল নোংরা হয় এরকম কিছু করবেন না। অপচনশীল দ্রব্য সাথে করে নিয়ে এসে লোকালয়ের ডাস্টবিনে ফেলবেন।
🔸 যদি সবগুলো ঝর্না দেখতে চান তাহলে সারাদিন তথা ৭/৮ ঘন্টা হাটার মানুষিকতা নিয়ে যাবেন।
❌🚫❌ ট্রেইল দেখা শেষে ট্রেনে করে ঢাকায় না ফিরা ভালো, কারন রাত ১২টায় চট্রগ্রাম মেইল এবং ১২:৫০ টায় তূর্না ফেনী থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় ।❌❌🚫
🔗 ছবিগুলো তোলা হয়েছে ৪ সেপ্টেম্বর’১৬
★ ১০টা ছবির মধ্যে দুটা ছবি নিজাম ভাইয়ের আইডি থেকে নেয়া হয়েছে।
.
💮💮 💮💮
কমলদহ ট্রেইলের সর্বমোট ৮টি ঝর্ণা (ছোট ছোট ঝর্ণা গুলো হিসেবে আনা হয়নি) দেখার বর্ণনা!
(ইট খোলা দিয়ে প্রবেশ করে ফটিকছড়ি-বারৈয়াঢালা রুট হয়ে নারায়ন আশ্রম হয়ে বড় দারোগারহাটে বের হবেন)
.
১. বাংলাদেশের যেকোন জায়গা থেকে বাসযোগে বড়দারোগারহাট নামবেন। তারপর স্ট্যাশনের পাশের ইট খোলার পাশের রাস্তা হয়ে যাওয়ার পরই কমলদহ ঝর্ণা★ পাবেন
২. কমলদহের উপরে উঠেই ছোট একটি ক্যাসকেড* পার হয়ে ঝিরি পথে গেলে একটু পর ঝিরিপথ দুভাগ পাবেন। হাতের বামে একটি এবং ডানে একটি
৩. হাতের বামের ঝিরি পথে যাবেন প্রথমে….
৪. এই ঝিরিপথে গেলে কিছুটা দুর গেলে আবারো দেখবেন হাতের ডানদিকে আরেকটি ঝিরি পথ পাবেন (এইটায় এখোনি যাবেন না)
৫. সোজা ঝিরিপথে একটু এগুলে ছাগলকান্দা ঝর্ণা ★ পাবেন (এটার উপরে উঠতে চাইলে পাশের পাহাড় দিয়ে উঠতে পারবেন, রাস্তাটা খুঁজে নিয়েন)
৬. ছাগলকান্দা ঝর্ণা দেখে ফিরার সময় ৪নং পয়েন্টে যে হাতের ডানের ঝিরি কথা বলছিলাম ঐটা দিয়ে যাবেন এখন
৭. একটু আগালে একটা ক্যাসকেড পাবেন, ঐ ক্যাসকেডের পাশ দিয়ে খুব রিস্কি পথ দিয়ে ক্যাসকেডের উপরে যাবেন।
৮. তারপর সামনে এগুলো আবারো দুটি ঝিরিপথ পাবেন।
৯. দু ঝিরিপথের শেষ মাথায় দুটি ঝর্ণার★★ দেখা পাবেন।
১০. স্পেশালি ডানেরটা দিয়ে গেলে বড় ঝর্না পাবেন, এটার উপরে উঠলে আরো ঝিরিপথ আছে, আমরা আর যাইনি।
১১. ঐখান থেকে ব্যাক করে ৪ নং পয়েন্টে আসবেন, তারপর ২নং পয়েন্টে ফিরে আসবেন।
.
.
১২. এবার ২ নং পয়েন্টের ডানের ঝিরিতে যাবেন, মাঝখানে একটি ঝর্ণা★ পাবেন। এই ঝর্নার পাশের হাল্কা পাহাড়ি রাস্তা দিয়ে উপরে উঠে পড়ুন,
১৩. তারপর আবারো ঝিরিপথ পাবেন, একটু এগুলো আরেকটি ক্যাসকেড পাবেন। এই ক্যাসকেড ডিঙিয়ে উঠে পড়ুন।
১৪. তারপর ঝিরিপথে একটু এগুলে সব শেষে ছোট একটি ঝর্না পাবেন, তখন মনে হবে আর সামনে যাওয়া যাবে না।
১৫. এখানে থেমে ছোট এই ঝর্ণাটির পাথর বেয়ে উপরে উঠে যাবেন, উঠার পরই নিজেকে অন্ধকার এক সুরঙ্গে আবিষ্কার করবেন। সামনে এগুবেন… ২মিনিট পরই পাথরভাঙ্গা ঝর্ণার★ দেখা পাবেন ।
১৬. ঐটা দেখে ব্যাক করে ১৩ নং পয়েন্টের ক্যাসকেড পার হওয়ার একটু পরই ব্যাক করতে থাকার পথে থাকাকালীন হাতের বায়ের পাহাড়ে উঠার একটি ছোট রাস্তা পাবেন। (মনে রাখবেন যখন পাথরভাঙ্গা ঝর্ণাঢ যান তখন হিসেব করলে পাহাড়ি রাস্তাটি হাতের ডানে হতো)
১৭. পাহাড়ে উঠে রাস্তা দেখবেন দুভাগ হয়ে গেছে। তখন পাহাড়ের উপরেরর দিকে যেই রাস্তা গেছে ঐটায় উঠে যাবেন।
১৮. একটু এগুলোই একটু বড় রাস্তার তিনমোড়ে পড়বেন। তখন হাতের ডানের রাস্তা দিয়ে চলে যাবেন।
১৯. একটু এগুলেই ঝরঝরি ঝর্না★ পাবেন।
২০. আরেকটু সামনে হেলে পাকা রাস্তা পেয়ে যাবেন।
পাকা রাস্তা হয়ে নিচে নামার সময় নিজেকে বান্দরবানে আবিস্কার করবেন। কারন চারপাশে ঐ রিজনের বড় বড় পাহাড়গুলো আপনার চারপাশে অবস্থান করছে। চমতকার একটি দৃশ্য উপভোগ করবেন মাস্ট।
এই রাস্তা দিয়ে এগুলোই নায়নআশ্রম, ফরেস্ট অফিস হয়ে সোজা বড়দারোগারহাট ষ্ট্যাশনে পৌছে যাবেন।
.
(মূল কথা হচ্ছে, যদি গাইড নিয়ে যান ততাহলে গাইডকে বলবেন ফটিকছড়ি-বারৈয়াঢালা রুট দিয়ে আপনাদের বের করতে)
*নারায়ন আশ্রমেরর পাশ দিয়ে আরেকটা ট্রেইল আছে… মধুখাইয়া ট্রেইল, ঐটায় আরো ঝর্ণা ক্যাসকেড আছে। ঐটার বর্ণনা অন্যদিন দিবো।
* কমলদহ ট্রেইলের ছটি ঝর্নার পিক দিলাম একসাথে। ক্যামেরা পারিতে পরে যাওয়ায় কয়েকটিমাত্র ঝর্ণার ছবি তুলতে পারিনি।
* স্ট্যাটাসে ★ দেয়া চিন্হগুলো দেয়া হয়েছে এই ট্রেইলের ঝর্ণাগুলো মার্ক এবং কাউন্টের সুবিধার্তে।
.
[[[[[ মোটকথা হচ্ছে যদি আপনি কমলদহ ট্রেইল + মধুখাইয়া ট্রেইল একসাথে শুরু-শেষ করতে পারেন তাহলে ছোট-বড় মিলিয়ে ২০+ ঝর্না দেখতে পারবেন ]]]]]

Farjana Akter

Generations previous to the year 2000 used to reach, exclusively, for travel agencies when wanting to plan a trip. Consequently, travel agents became personal counselors, destined to help customers with their search to build the perfect vacation itinerary.

3 thoughts on “Komoldaho water fall Travel

  • March 30, 2019 at 10:13 pm
    Permalink

    Unquestionably believe that which you said. Your favorite justification appeared to be on the internet the simplest thing to be aware of. I say to you, I definitely get irked while people consider worries that they just don’t know about. You managed to hit the nail upon the top and defined out the whole thing without having side-effects , people could take a signal. Will probably be back to get more. Thanks

    Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *